কুৎসিত সাম্প্রদায়িকতা বা প্রাদেশিকতার রাজনীতি

২ নভেম্বর এক প্রেস বিবৃতিতে সিপিআই(এমএল) রাজ্য সম্পাদক পার্থ ঘোষ বলেন, জিয়াগঞ্জে শিক্ষক ও তার পরিবারের নৃশংস হত্যাকাণ্ড হোক বা টালিগঞ্জ লেকে ছট উৎসব — কথায় কথায় কুৎসিত সাম্প্রদায়িক বা প্রাদেশিকতার রাজনীতি শুরু হয়ে যাচ্ছে এরাজ্যে!

ন্যাশনাল গ্রীণ ট্রাইব্যুনাল বা রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের নিষেধাজ্ঞা যাই থাক পরিবেশ ধ্বংসের এক উৎকট প্রতিযোগিতা চলছে। তা সে দীপাবলী উৎসবে শব্দবাজি পোড়ানো হোক, গঙ্গায় প্রতিমা নিরঞ্জন হোক বা ছট উৎসবে লেকের জল বা লেকের সবুজ ধ্বংস হোক। পরিবেশ রক্ষায় জনগণকে সচেতন করা, সমাবেশিত করার পরিবর্তে সংকীর্ণ স্বার্থে শাসক রাজনৈতিক দলগুলি পরিবেশ ধ্বংসে মদত দিয়ে যায়। অজস্র উদাহরণ চোখের সামনে থাকা সত্ত্বেও রাজ্য সরকার বা পুলিশ প্রশাসন দেখেও না দেখার ভাণ করে অথবা পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করে।

আজ ছট উৎসব উপলক্ষে টালিগঞ্জ লেকে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি প্রাকৃতিক পরিবেশকে দূষিত করেছে। কিন্তু একে কেন্দ্রীয় করে একদিকে “জয় শ্রীরাম” ধ্বনি অন্যদিকে “গুটকা খোর” ধ্বনি তুলে বিজেপি-আরএসএস বা রাজ্যের শাসকদলের অনুগত ও মদতপুষ্ট ‘আমরা বাঙালি’-র নয়া অবতাররা রাজনৈতিক পরিবেশকে কলুষিত করছে। শুধু তাই নয়, সাম্প্রদায়িক ও বিভাজনের রাজনীতি ফেরি করে উত্তেজনা সৃষ্টি করছে। পরিবেশ রক্ষা করা এদের মোটেই লক্ষ্য নয়। এই ধরনের বিষাক্ত রাজনৈতিক শক্তি সম্পর্কে রাজ্যের জনগণকে সচেতন থাকার আবেদন জানাচ্ছে আমাদের পার্টি।

খণ্ড-26
সংখ্যা-35
07-11-2019