সাবাশ আইসা!

bally aisa

বালি শান্তিরাম স্কুলে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র সুমিত সিং-কে স্কুল থেকে অবৈধভাবে স্কুল কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য সাসপেন্ড করে দেওয়ার বিরুদ্ধে আইসার হাওড়া জেলার পক্ষ থেকে একটা টিম শান্তিরাম স্কুলে যায় এবং দীর্ঘ সময় নিয়ে টিচার ও ছাত্রটির অভিভাবকের উপস্থিতিতে আলোচনা করে। তাদের আলোচনার ফলে স্কুল কর্তৃপক্ষ নতিস্বীকার করে এবং ছেলেটির সুস্থ ভবিষ্যতের স্বার্থ পরেরদিন থেকেই তাকে স্কুলে নিয়মিতভাবে আসতে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। প্রসঙ্গত ছেলেটির পরিবার আর্থিকভাবে যথেষ্ট দুর্বল, ফলে স্কুলে যখন ছেলেটিকে আসতে দেওয়া হচ্ছিল না তখন সে একটা হোটেলে কাজ করতে শুরু করে।

টিচারদের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হয় এবং তাদের ঔদ্ধত্যকে ভেঙে তাদেরই স্কুলের আইসার সদস্যরাও বিক্ষোভে সামিল হয়। পরে টিচাররা নিজেদের লোকজনকে জড়ো করার চেষ্টা চালালেও তারা অনেকেই আমাদের পক্ষ নেয় ও টিচারদের পক্ষে ঘটনাটি সেমসাইড হয়ে যায়।

আইসা মনে করে ছেলেটি পড়াশোনায় দুর্বল বলে যেভাবে “বাকি ছাত্ররা খারাপ হবে” -- এই অজুহাতে স্কুল কর্তৃপক্ষ সাসপেনশন এনেছিল তা সম্পূর্ণ অবৈধ ও শিক্ষার অধিকার আইনের পরিপন্থী।

আলোচনায় আইসা প্রতিনিধিরা দুর্বল ছাত্রদের উন্নতির জন্য বেশ কিছু প্রস্তাবও রাখেন।

class 5

 

খণ্ড-26
সংখ্যা-30
26-09-2019